ভিডিও

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

মমতা বন্দ্যোাধ্যায়; মন্ত্রিসভায় থাকতে পারেন অনেক নতুন মুখ

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

আসানসোল, সৌরদীপ্ত সেনগুপ্ত :২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে দুর্দান্ত জয়ের পরে তৃণমূল কংগ্রেস পশ্চিমবঙ্গে টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে চলেছে। নন্দীগ্রামের পরাজয় সত্ত্বেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পথ পরিষ্কার। এবার তাঁর মন্ত্রিসভায় অনেক নতুন মুখকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার গঠনের মহড়া শুরু করেছেন। এর সাথে তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের সম্ভাব্য মন্ত্রীদের নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে।

দলীয় সূত্রগুলি বলছে, পুরনো মুখগুলির পাশাপাশি নতুন মুখগুলিকে মন্ত্রিসভায় সুযোগ দেওয়া হবে। মমতা ব্যানার্জি তপসিয়ার দলীয় কার্যালয়ে দলের নবনির্বাচিত বিধায়কদের ডেকেছেন। ধারণা করা হচ্ছে যে নবনির্বাচিত বিধায়করা এই সভায় তাদের নেতা নির্বাচন করবেন। এই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কখন এবং কোথায় শপথ নেবেন। মমতা ব্যানার্জি ইতিমধ্যে ঘোষণা করেছেন যে তিনি শপথ অনুষ্ঠানটি বৃহৎ ও আড়ম্বর সহকারে করবেন না। সভার পরে সন্ধ্যা সাতটায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যপাল জগদীপ ধানখরের সাথে দেখা করতে রাজভবনে যাবেন।

মনে করা হচ্ছে যে তিনি প্রথমে রাজ্যপালের কাছে মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করবেন। এরপর তিনি রাজ্যে সরকার গঠনের দাবিতে অংশ নেবেন। খবরে বলা হয়েছে, তিনি রাজ্যপালের কাছে মন্ত্রীর তালিকাও হস্তান্তর করবেন, যারা তাঁর সঙ্গে মন্ত্রিসভার শপথ নেবেন।

দলীয় সূত্র বলছে, মন্ত্রীদের মধ্যে পুরানো মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী, অরূপ বিশ্বাস, ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, শোভনদেব চ্যাটার্জী, মলয় ঘটকের মতো নাম অন্তর্ভুক্ত থাকবে, তবে তাদের কয়েকটি পোর্টফোলিও বদলে যেতে পারে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর দ্বিতীয় মেয়াদে অমিত মিত্রকে অর্থমন্ত্রী করেছিলেন, কিন্তু এই নির্বাচনে শারীরিক অসুস্থতার কারণে অমিত মিত্রকে টিকিট দেওয়া হয়নি। এরফলে কে অর্থমন্ত্রী হবেন তা নিয়ে জল্পনা চলছে। ২০১১ সালে জয়ের পরে তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক পার্থ চ্যাটার্জীকে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হলেও পরে অমিত মিত্রকে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল এবং পার্থ চ্যাটার্জীকে শিক্ষা বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।

মদন মিত্র, প্রদীপ মজুমদার, শিবপুর থেকে নির্বাচিত প্রাক্তন ক্রিকেটার মনোজ তিওয়ারি মন্ত্রিসভায় থাকতে পারেন। তাকে খেলাধুলা ও যুব প্রতিমন্ত্রীর মতো পদ দেওয়া যেতে পারে। এর পাশাপাশি পূর্ব বর্ধমান, ঝাড়গ্রাম, মুর্শিদাবাদ ও মালদা এই নির্বাচনে ভাল ফল করেছে। নতুন মন্ত্রিসভায় ওই অঞ্চলের নবনির্বাচিত বিধায়কদের জায়গা দেওয়া হতে পারে।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হল যে, শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো শক্তিশালী নেতা মমতা ব্যানার্জির হাত ছেড়ে নির্বাচনের আগে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে মমতা ওই জায়গায় কাদের ওপর বিশ্বাস রাখবেন তা দেখার বিষয় হবে।

TAGS

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর