ভিডিও

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

২১শে জুলাই শহীদ স্মরণ সভা পালিত হলো সালানপুর ব্লকে

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

কৌশিক মুখার্জি, নির্ভীক বাংলা সালানপুর:

১৯৯৩ সালে ২১শে জুলাই দিন পুলিশের গুলিতে শহীদ হয়ে ছিলেন ১৩টি তরতাজা প্রাণ।বন্দনা দাস,
মরারি চক্রবর্তী,রতন মণ্ডল,বিশ্বনাথ রায়,অসীম দাস, কল্যাণ ব্যানার্জী,কেশব বৈরাগী, শ্রীকান্ত শর্মা,দিলীপ দাস,রঞ্জিত দাস,প্রদীপ রায়,মহম্মদ খালেক, ইনু মিঞা পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারিয়ে ছিলেন।তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এই দিনটি পালন করে সর্ব ভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস। এই দিনটি সমগ্র রাজ্য সহ ৬টি রাজ্যে পালিত হয়।করোনার জেরে দলের সুপ্রিম তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিদ্ধান্ত নেন ভার্চুয়ালের মাধ্যমে দিনটি পালন করার।তারই পরিপ্রেক্ষিতে আজ সালানপুর ব্লক তৃণমূল কার্যালয় সহ ব্লকের ১১টি পঞ্চায়েত ও বুথ স্তরে দিনটি পালন করা হয়।এদিন শহীদ বেদিতে মাল্যদান করে ১৩ জন শহীদের শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করা হয়।এদিন ব্লক কার্যালয়ে ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি মহম্মদ আরমান,ব্লক তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক ভোলা সিং, সালানপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ফাল্গুনী কর্মকার ঘাসি, সহ সভাপতি বিদ্যুৎ মিশ্র সহ সমস্ত নেতৃত্বরা শহীদ বেদিতে মাল্যদান করেন।তাছাড়া দুপুর ২টার পর টেলিভিশন মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভার্চুয়াল বার্তা শুনেন। এই প্রসঙ্গে সালানপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা জেলা পরিষদ কর্মদক্ষ মোঃ আরমান বলেন যে করোনার কথা মাথায় রেখে ভিড় না করে আজ ব্লক জুড়ে প্রতিটি বুথে শহীদের শ্রদ্ধা জানানো হয়।তাছাড়া এলাকার দুটি যুবতী যাঁরা ফুটবল খেলে তাদের হাতে ফুটবল তুলে দেওয়া হয়।এবং দুপুর দুটোয় টেলিভিশন মাধ্যমে দিদির দেওয়া বার্তা সবাই মিলে দেখবো ও আগামী দিনে ঐ পথে আমরা চলবো।
এই প্রসঙ্গে সালানপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ভোলা সিং বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়ের নির্দেশে করোনার প্রকোপের কথা মাথায় রেখে দল আগামী বছর থেকে ভার্চুয়াল ভাবে এই দিনটি পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
তারই পরিপ্রেক্ষিতে আজ দূরত্ব বজায় রেখে ছোট করে বুথে বুথে শহীদ শ্রদ্ধাঞ্জলি দেওয়া হলো।

TAGS

সম্পর্কিত খবর

সর্বশেষ খবর