ভিডিও

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

শতাধিক নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে বিজেপি ছেঁড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন বরিষ্ঠ নেতা মনোজ তেওয়ারী

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

কৌশিক মুখার্জী, নির্ভীক বাংলা সালানপুর

শতাধিক নেতা কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে বিজেপি ছেঁড়ে বারাবনি বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়ের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন বরিষ্ঠ নেতা মনোজ তেওয়ারী,মবিন খান ও রামচন্দ্র সাউ।রবিবার বিকেলে কল্যানেশ্বরী লেফট ব্যাংক দেন্দুয়া আঞ্চলিক কার্যালয়ের উদ্বোধনের পাশাপাশি যোগদান পর্ব সম্পন্ন হয়।এদিন দলীয় পতাকা উত্তোলন করে পার্টি কার্যালয়ের ফিতে কেটে উদ্বোধন করেন বারাবনি বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়,
সালানপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা জেলা পরিষদ কর্মদক্ষ মহম্মদ আরমান,সালানপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক ভোলা সিং।
এই যোগদান প্রসঙ্গে বারাবনি বিধায়ক বিধান উপাধ্যায় বলেন যে মনোজ তেওয়ারী এলাকার বরিষ্ঠ নেতা ওনার যোগদানে এবার দেন্দুয়া পঞ্চায়েতে দলের জয় নিশ্চিত।উনি নিজের ভুল বুঝতে পেরে তৃণমূল কংগ্রেস যোগদান করলেন আমি ওনাকে দলে স্বাগতম জানাই।তাছাড়া আজ এদের যোগদান করার পর দেন্দুয়াতে বিজেপি শূন্য হয়ে পড়লে।তৃণমূল কংগ্রেস একটা পরিবার,এখানে সবাই সমান আর এই পরিবারে মিলেমিশে উন্নয়ন কাজ করে আর এতে পরিবারে আজ থেকে সবাইকে স্বাগতম।
এই যোগদান প্রসঙ্গে মনোজ তেওয়ারী বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়ের উন্নয়ন দেখে আমি প্রভাবিত হয়,যেভাবে তারা উন্নয়ন করে চলেছে তা অতুলনীয়।আমি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি সঙ্গে কাজ করেছি আমি বিজেপির জেলা কমিটির সদস্য ছিলাম তার পাশাপাশি শ্রমিক সংগঠনের সম্পাদক ছিলাম,কিন্তু আমি নিজের ভুল বুঝতে পেরেছি তাই আজ দেন্দুয়া অঞ্চলের শতাধিক বুথকর্মী ও বুথ সভাপতিদের সঙ্গে নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলাম,আমি আগামী দিনে চেষ্টা করবো বিধায়কের নির্দেশে মেনে দেন্দুয়া অঞ্চলের উন্নয়ন করার।
তাছাড়া আজকের এই যোগদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দেন্দুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ প্রধান রঞ্জন দত্ত,সদস্য চন্দন রজক,তৃণমূল নেতা শশী ভূষণ পান্ডে,ডি.বাবলু, মান্নু সিদ্দিকী,জয়প্রকাশ সিং,বীর সিং,আশুতোষ তেওয়ারী,নরেন্দ্র খোসলা,বিজয় সিং,শঙ্কর ঘোষ সহ আরো অনেকে।

TAGS

সম্পর্কিত খবর