ভিডিও

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

বন্ধে প্রভাব পড়েনি খনি এলাকায় । স্বাভাবিক ছিল জনজীবন

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

সার্থক কুমার দে, অন্ডাল : অগ্নিবীর প্রকল্পে চুক্তিভিত্তিক সেনা নিয়োগ এর সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সোমবার বেশ কয়েকটি সংগঠন একযোগে ভারত বনধের ডাক দিয়েছিল । এদিন গোটা রাজ্যের মত অন্ডাল, পাণ্ডবেশ্বর, লাউদোহা সহ বিস্তীর্ণ খনি অঞ্চলে বন্ধের কোনো প্রভাব পড়েনি । স্বাভাবিক ছিল জনজীবন । অন্ডালের নর্থ ও সাউথ বাজার, কাজোরা, উখড়া, পাণ্ডবেশ্বরের পাণ্ডবেশ্বর, হরিপুর, বহুলা লাউদোহা ব্লকের লাউদোহা, বনগ্রাম সহ সমস্ত বাজার হাট খোলা ছিল অন্যান্য দিনের মত । রাস্তায় স্বাভাবিক ছিল যান চলাচল । সরকারি-বেসরকারি অফিস, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ও বন্ধের কোনো ছাপ পড়েনি । পূর্বঘোষণা মত এদিন এলাকার সমস্ত বিদ্যালয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের হাতে মার্কশিট ও প্রশংসা পত্র দেওয়া হয় । খনি সংস্থা ইসিএলের বাকোলা,কেন্দা, কাজোরা, পাণ্ডবেশ্বর এরিয়ার সমস্ত কয়লা খনিতে শ্রমিকদের হাজিরা ও উৎপাদন ছিল স্বাভাবিক । বন্ধের সমর্থনে খনি অঞ্চলে গতকাল অথবা আজ কোন প্রচার চোখে পড়েনি । এদিনের বন্ধ সম্পর্কে তৃণমূল নেতা তথা পশ্চিম বর্ধমান জেলা পরিষদের কর্মধ্যক্ষ সুজিত মুখোপাধ্যায় জানান চুক্তিভিত্তিক সেনা নিয়োগের “অগ্নিবীর”- প্রকল্প নিয়ে আমাদের দলের অবস্থান খুব স্পষ্ট । আমাদের দল এই প্রকল্প যেমন সমর্থন করেনা তেমনি আমরা এই বন্ধকেও সমর্থন করছি না । আমাদের দল নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতকালই বন্ধে যাতে রাজ্যে প্রভাব না পড়ে সেজন্য মানুষের কাছে আবেদন রেখেছিলেন । বাংলার মানুষ সেই আবেদনে সাড়া দিয়েছে । খনি এলাকাতেও বন্ধে কোনো প্রভাব পড়েনি বলে সুজিত বাবু দাবি করেন ।

TAGS

সম্পর্কিত খবর